মুরাদ হাসানকে মারধর দাবি করে নামিবিয়ার একটি ভিডিওকে ভুয়াভাবে ভাইরাল করা হচ্ছে

False Political

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুকে একটি  ভিডিও শেয়ার দাবি করা হচ্ছে, ব্যারিস্টার জাইমা রহমানের ব্যাপারে কুমন্তব্য করায় প্রতীমন্ত্রী মুরাদ হাসানকে মারধর করা হল। ভাইরাল এই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে পেট্রোল পাম্প জাতীয় কোনও একটি জায়গায় একজন লোককে নীল উর্দি ও কালো প্যান্ট পরিহিত তিন জন লোক লাঠি দিয়ে মারা হচ্ছে। ভিডিওর ওপরে লেখা রয়েছে – টাকলাকে কঠিন দোলাই। পোস্টের ক্যাপশনে লেখা রয়েছে – #ব্রেকিং নিউজ ব্যারিস্টার জাইমা রহমানকে নিয়ে বাজে মন্তব্য করায় টাকলা মুরাদ কে সাধারণ মানুষের গন দোলাই ,,,,। 

তথ্য যাচাই করে আমরা জানতে পারি পোস্টের মাধ্যমে ছড়ানো দাবি ভুয়া ও বিভ্রান্তিকর। নামিবিয়ার একটি পেট্রোল পাম্পের ভিডিওকে মুরাদ হোসেনকে মারার ঘটনা দাবি করে ভুয়া পোস্ট শেয়ার করা হচ্ছে। 

ফেসবুক পোস্ট 

উল্লেখ্য, অশালীন মন্তব্য করার জেরে মোঃ মুরাদ হাসানকে তথ্য প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব থেকে পদত্যাগ করতে হয়। এরপর বৃহস্পতিবার দেশ ছেড়ে তিনি বিমানবন্দরে যান। খবর অনুযায়ী তিনি দুবাই হয়ে কানাডা যাচ্ছিলেন। এরপর তার তিনদিনের মধ্যে, রবিবার, মোঃ মুরাদ বাংলাদেশে ফেরত আসেন। বিস্তারিত জানুন। 

তথ্য যাচাই 

এই দাবির সত্যতা যাচাই করতে ভিডিওটিকে ইনভিড টুলের মাধ্যমে কি-ফ্রেমে ভেঙ্গে গুগলে রিভার্স ইমেজ সার্চ করি। দক্ষিন আফ্রিকার মুখ্যধারার সংবাদমাধ্যম ‘দি সিটিজেন’-এর প্রতিবেদনে এই ভিডিওর উল্লেখ পাই। ১১ জানুয়ারি, ২০১৭, তারিখের এই প্রতিবেদন থেকে জানতে পারি, ভিডিওটি দক্ষিন-পশ্চিম আফ্রিকার দেশ নামিবিয়ার। একজন শ্বেতাঙ্গ ব্যক্তি মদ্যপ অবস্থায় পেট্রোল পাম্পে আসেন এবং পেট্রোল নেওয়ার পর টাকা দিতে অস্বীকার করেন ও কর্মীদের সাথে দুর্ব্যবহার শুরু করেন। এরপর পাম্প নিরাপত্তা কর্মীরা ওই ব্যাক্তিকে বেসবলের ব্যাট দিয়ে মারধর করেন। 

প্রতিবেদন আর্কাইভ 

এই সুত্র ধরে প্রাসঙ্গিক কিওয়ার্ড সার্চ করি। দক্ষিণ আফ্রিকার রাজনীতিবিদ এবং রাজনৈতিক কর্মী ‘Mbuyiseni Quintin Ndlozi’-এর অফিশিয়াল ইন্সতাগ্রাম থেকে এই ভিডিওর দীর্ঘ সম্পাদনটি খুঁজে পাই। ভিডিওটি ২০১৭ সালের ২ জানুয়ারী তারিখে পোস্ট করা হয়। 

“টাউন প্রেস এসএ” নামের একটি ইউটিউব চ্যানেলে এই একই ভিডিওটি খুঁজে পাই। ২০১৭ সালের ৯ জানুয়ারী এটি আপলোড করা হয়েছে। এই ভিডিওর শিরোনামে লেখা রয়েছে, “পেট্রোল অ্যাটেনডেন্ট এক ব্যক্তিকে মারধর করেছে।”  

নিষ্কর্ষঃ তথ্য যাচাই করে ফ্যাক্ট ক্রিসেন্ডো সিদ্ধান্তে এসেছে উপরোক্ত দাবিটি ভুল ও ভিত্তিহীন। নামিবিয়ার একটি পেট্রোল পাম্পের ভিডিওকে মুরাদ হোসেনকে মারার ঘটনা দাবি করে ভুয়া পোস্ট শেয়ার করা হচ্ছে।

Avatar

Title:মুরাদ হাসানকে মারধর দাবি করে নামিবিয়ার একটি ভিডিওকে ভুয়াভাবে ভাইরাল করা হচ্ছে

Fact Check By: Rahul A 

Result: False

Leave a Reply

Your email address will not be published.