২০১৯ সালের মিরপুরের ঘটনা সম্প্রতির দাবি করে ভুয়া পোস্ট ভাইরাল

Missing Context Social

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি ভিডিও শেয়ার করে দাবি করা হচ্ছে, হিন্দুর নাম দিয়ে মন্দিরে ঢুকে মূর্তি ভেঙে দিল একজন মুসলিম যুবক। ১ মিনিট ৪৯ সেকেন্ডের ভিডিওতে একাত্তর টিভির একটি উপস্থাপনা দেখা যাচ্ছে যেখানে সঞ্চালিকা বর্ণনা করছেন মিঠুন চক্রবর্তী নাম ব্যবহার করে রাশেদুল হাসান নামে একজন মুসলিম যুবক মন্দিরে ঢুকে হিন্দু ধর্মের দেবী কালী মূর্তি ভেঙে দেয়। ঘটনাটি রাজধানীর ঢাকার মিরপুরে ঘটে।

পোস্টের ক্যাপশনে লেখা রয়েছে, “আবার হিন্দুদের মন্দির আক্রান্ত হলো😪😪। খোদ রাজধানী ঢাকার মিরপুর কেন্দ্রীয় মন্দিরে মিঠুন চক্রবর্তী নামে পরিচয় দিয়ে মন্দিরে প্রার্থনা করবে বলে প্রবেশের অনুমতি নিয়ে মূল মন্দিরের ভিতরে ঢুকে প্রতিমা টেনে হিঁচড়ে মাটিতে ফেলে ভাঙচুর চালালো রাশেদুল হাসান নামে এক দুর্বৃত্ত!!”

তথ্য জাচাই করে আমরা দেখতে পেয়েছি এই দাবি বিভ্রান্তিকর। ২০১৯ সালের মিরপুরের ঘটনাকে ভুয়া দাবির সাথে শেয়ার করে বিভ্রান্তিকর খবর ছড়ানো হচ্ছে। 

ফেসবুক পোস্ট

15264863-da24525a15b1692806b811839e706406.png

উল্লেখ্য, কুমিল্লায় হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রধান উৎসব দুর্গাপূজার মন্ডপে কোরআন পাওয়া ঘিরে দেশজুড়ে একধরণের অশান্তির পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। পুজোমন্ডপ, মন্দির ও প্রতিমা ভাঙচুর এবং আগুনের পর দেশের ২২ জেলায় বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। কুমিল্লার ঘটনায় এপর্যন্ত ৪৩ জনকে আটক করা হয়েছে।

তথ্য যাচাই

এই দাবির সত্যতা যাচাই করতে প্রথমে আমরা সংবাদ মাধ্যম ‘একাত্তর টিভি’-এর ভাইরাল ভিডিও উপস্থাপনাটি খুঁজে বের করার চেষ্টা করি। প্রাসঙ্গিক কিওয়ার্ড সার্চ করে ‘একাত্তর টিভি’-এর অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেলে এই ভিডিওটি খুঁজে পাই। ২০১৯ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি এটি আপলোড করা হয়েছিল যার শীর্ষকে লেখা রয়েছে, প্রার্থনা করতে এসে প্রতিমা ভাংচুর। এই ভিডিওকেই বিভ্রান্তিকর দাবির সাথে ভাইরাল করা হচ্ছে। অর্থাৎ, এই ঘটনাটি সত্য কিন্তু পুরনো । আরও লক্ষণীয় হল উপস্থাপনায় যে সিসিটিভি ফুটেজটি রয়েছে তার ওপরে ২৮-০২-২০১৯ লেখা রয়েছে। অর্থাৎ স্পষ্ট বোঝা যায় এটি ২০১৯ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারির ঘটনা। 

সংবাদ মাধ্যম ‘জাগো নিউজ’-এর একটি প্রতিবেদনে এই ঘটনার উল্লেখ পাই। জানতে পারি মন্দিরে পুরোহিতের সহকারী অতিন্দ্র সরকার জাগো নিউজকে বলেন, “আমরা প্রতিদিন সকাল ৬টায় মন্দির খুলে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার কাজ করি। আজও একই সময়ে মন্দির খুলে পরিষ্কার করতে থাকলে প্রার্থনা করতে এসে ওই যুবক প্রতিমা ভাঙচুর করে। এ সময় আমরা তাকে ধরে ফেলি।“ 

download - 2021-10-19T170846.182.png
প্রতিবেদন আর্কাইভ

নিষ্কর্ষঃ তথ্য যাচাই করে ফ্যাক্ট ক্রিসেন্ডো সিদ্ধান্তে এসেছে উপরোক্ত দাবিটি ভুল ও ভিত্তিহীন। ২০১৫ সালে চিনে একটি মাছবাহি ট্রাক দুর্ঘটনার ছবিকে ভুয়ো দাবির সাথে ভাইরাল করা হচ্ছে।

Avatar

Title:২০১৯ সালের মিরপুরের ঘটনা সম্প্রতির দাবি করে ভুয়া পোস্ট ভাইরাল

Fact Check By: Rahul A 

Result: Missing Context

Leave a Reply

Your email address will not be published.