পাবজি আসক্তির কারণে হাসপাতালে ভর্তি যুবক? ভারতের ভিডিওকে ভুয়া দাবির সাথে শেয়ার 

False Social

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও শেয়ার করে দাবি করা হচ্ছে, পাবজি এবং ফ্রি ফায়ার খেলে হাসপাতালে ভর্তি যুবক। ৩০ সেকেন্ডের এই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে একজন তরুণ একটি হাসপাতালের বেডে শুয়ে আছে এবং আঙুল দিয়ে বন্দুক দিয়ে গুলি ছোঁড়ার মতো অঙ্গভঙ্গি করছে। পোস্টের ক্যাপশনে লেখা রয়েছে, “পাবজি.ফ্রী ফায়ার অনলাইন গেম এর শেষ পরিনতি! আপনার সন্তানকে এন্ড্রয়েড ফোন থেকে বিরত রাখুন!”

তথ্য যাচাই করে আমরা দেখতে পেয়েছি এই দাবি ভুল এবং বিভ্রান্তিকর। ভারতের তামিলনাড়ু রাজ্যের একটি ঘটনাকে পাবজি গেমের সাথে জুড়ে ভুয়া পোস্ট ভাইরাল।

ফেসবুক পোস্ট

তথ্য যাচাই

ভিডিওটিকে ‘ইনভিড’ টুলের সাহায্যে কি-ফ্রেমে ভাগ করে গুগলে রিভার্স ইমেজ সার্চ করি। ফলাফলে কোনও তথ্য পাওয়া যায় না। ভিডিওটি ভালোভাবে লক্ষ্য করে বুঝতে পারি ভিডিওতে তামিল ভাষায় কথা বলা হচ্ছে। এই সূত্র নিয়ে গুগলে প্রাসঙ্গিক কিওয়ার্ড সার্চ করি। সংবাদমাধ্যম ‘এবিপি তামিল’-এর একটি প্রতিবেদনে এর অনুসন্ধান পাওয়া যায়। জানতে পারি, তামিলনাড়ুর নেল্লাই জেলার নাঙ্গুনেরি অঞ্চলের ১৭ বছর বয়সী যুবককে চিকিৎসার জন্য গত সোমবার রাতে জেলা সরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। অর্ধ অচৈতন্য অবস্থায় ছেলেটি হাত দিয়ে গুলি মারার অঙ্গভঙ্গি করে যা দেখে চিকিৎসকরা অবাক হয়ে যায়।

এরপর ইংরেজি সংবাদমাধ্যম ‘টাইমস অফ ইন্ডিয়া’-এর প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, এই ঘটনার সাথে পাবজি গেমের কোনও সম্পর্ক নেই। 

এই প্রতিবেদনে থেকে জানা যায় তাকে তিরুনেলভেলি এমসিএইচ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ফ্যাক্ট ক্রিসেন্ডো তিরুনেলভেলি এমসিএইচ ডিন ডাঃ এম রবিচন্দ্রনের সাথের যোগাযোগ করেন। তিনি আমাদের জানান, “এটি কোনও পাবজি সম্পর্কিত রোগ নয়। যদিও ছেলেটি অনেক বেশি মোবাইল ব্যবহার করত কিন্তু তার কোনও আসক্তি ছিল না। তার বাবা তাকে মোবাইল ব্যবহার করতে বন্ধ করতে বলায় সে ইচ্ছে করে তাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করার জন্য এমনটি করছিল। এই ঘটনার পরই তাকে হাসপাতালে আনা হয়। ছেলেটির বাবা মাকে ফোন করে জানিয়েছে যে ছেলে সুস্থ আছে।

নিষ্কর্ষঃ তথ্য যাচাই করে ফ্যাক্ ক্রিসেন্ডো সিদ্ধান্তে এসেছে উপরোক্ত দাবিটি ভুল ও ভিত্তিহীন। ভারতের তামিলনাড়ু রাজ্যের একটি ঘটনাকে পাবজি গেমের সাথে জুড়ে ভুয়া পোস্ট ভাইরাল।

Avatar

Title:পাবজি আসক্তির কারণে হাসপাতালে ভর্তি যুবক? ভারতের ভিডিওকে ভুয়া দাবির সাথে শেয়ার

Fact Check By: Rahul A 

Result: False

Leave a Reply

Your email address will not be published.